ঐতিহ্য

ব্রাহ্মণবাড়িয়ার সকল ইতিহাস, ঐতিহ্য, ভাষা ধর্ম, সংস্কৃতি, সংগঠন ইত্যাদি যে কোন ধরনের অস্তিত্ব সংরক্ষণ এবং সংযোজন

  • আঞ্চলিক ভাষায় কিছু মজার প্রবাদ ও প্রবচন

    আঞ্চলিক মজার কিছু প্রবাদ ও প্রবচন! ব্রাহ্মণবাড়িয়া আঞ্চলিক ভাষায় গভীর অর্থবোধক কিছু প্রবাদ বাক্য ও প্রবচন। কিছু কিছু প্রবাদ পড়তে বা শুনতে নেতিবাচক মনে হলেও এসব প্রবাদে অনেক তাৎপর্য লুকিয়ে আছে। একবার করে পড়ে আসেন। সত্যিই একটি অন্য রকম অনুভূতি সৃষ্টি হবে। আশা করি সবার ভাল লাগবে! জান চলে না বাড়ি বাউনবাইড়া। বাড়ির গরু গাডার ঘাস খায় না। কম পানির মাছ বেশি পানিতে পড়লে ছডর ফডর করে। বাপ দাদার নাম নাই, চান মোল্লার বিয়াই। ঠাডা পইড়া বগা মরছে, ফকিরের কেরামতি বাড়ছে। আজাইরা থাইকা, গজাইরা গীত গা। আমও গেছে, লগে ছালাও গেছে। হায়ের নামে লেশ নাই, দেওর চৌদ্দ জন। লাইগ্যা থাকলে ম্যাইগা খাওয়া লাগে না। ভাত ছিটাইলে কাওয়ার অভাব হয় না।…

  • ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত

    সংগ্রামী নেতা ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত

    ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত শুধু একটি নাম নয়, একটি রক্তঝরা ইতিহাস। অসহযোগ আন্দোলন থেকে শুরু করে ভাষা আন্দোলন পর্যন্ত তার পুরো জীবনটাই ছিল সংগ্রামে ভরপুর। শুধু ব্রাহ্মণবাড়িয়া নয়, ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত ছিলেন সমগ্র বাংলার সিংপুরুষ। তিনি ছিলেন অকুতোভয় নেতা। অধিকারের কথা বলতে তিনি কাউকে ভয় পেতেন না। ধীরেন্দ্রনাথ দত্ত ২রা নভেম্বর ১৮৮৬ সালে বর্তমান ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদরের রামরাইল গ্রামে এক সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা ছিলেন জগবন্ধু দত্ত। যিনি কসবা ও নবীনগর আদালতের সেরেস্তার ছিলেন।বাবার কর্মস্থলের সুবাদে তার মাধ্যমিক স্তরের করেন নবীনগর হাই স্কুল থেকে এবং ১৯০৪ সালে প্রবেশিকা পরিক্ষায় উত্তীর্ণ হন। ১৯০৬ সালে তিনি কুমিল্লা কলেজ থেকে এফ. এ পাস করেন। এরপর উচ্চ শিক্ষার জন্য পাড়ি জমান কলকাতায়। সেখানে কলকাতা রিপন কলেজে…

  • সুর সম্রাট ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁ

    যে কিংবদন্তির জন্য ব্রাহ্মণবাড়িয়া সমগ্র ভারতবর্ষ ও বিশ্বব্যাপী পরিচিত লাভ করে তিনি হলেন তিতাস পাড়ের কৃতি সন্তান ওস্তাদ আলাউদ্দিন খাঁ। তিনি বাবা আলাউদ্দিন খাঁ নামেও পরিচিত। ১৮৬২ সালের ৮ ই অক্টোবর ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নবীনগর উপজেলার শিবপুর গ্রামে এক বিখ্যাত সঙ্গীত পরিবারে তিনি জন্মগ্রহণ গ্রহণ করেন। তার পিতার নাম সবদর হোসেন খাঁ ওরফে সদু খাঁ। যিনি ছিলেন একজন বিশিষ্ট সঙ্গীতজ্ঞ। তাঁর বাবা-মা তাঁকে আলম নামে ডাকতেন। বাল্যকাল থেকেই আলাউদ্দিনের সঙ্গীতের প্রতি ছিল প্রবল অনুরাগ। অগ্রজ ফকির আবতাব উদ্দিন খাঁর নিকট তার সঙ্গীতের হাতেখড়ি হয়। বাল্যবয়সে তাঁকে গ্রামের পাঠশালায় ভর্তি করানো হয়। কিন্তু তিনি এতটাই সুর পাগল ছিলেন যে সুর ছাড়া তিনি কোনো কিছু কল্পনাও করতে পারতেন না।তাই তার আর প্রাতিষ্ঠানিক পড়াশোনা…

  • একনজরে বুধন্তি ইউনিয়ন

    বুধন্তি ইউনিয়ন বুধন্তি ইউনিয়ন টি বিজয়নগর উপজেলার অন্তর্ভুক্ত অন্যতম ১নং ইউনিয়ন পরিষদ। এই ইউনিয়নের প্রশাসনিক সকল কার্যক্রম বিজয়নগর থানার অন্তর্ভুক্ত । এটি জাতীয় সংসদ এর ২৪৫ নং নির্বাচনী এলাকা ব্রাহ্মণবাড়িয়া ৩ আসনের অংশ বিশেষ। বিজয়নগর উপজেলার সর্ব-উত্তর দিকে এই ইউনিয়ন টি অবস্থিত। এই ইউনিয়নের দক্ষিণ দিকে রয়েছে চান্দুরা ইউনিয়ন ও হরষপুর ইউনিয়ন, পূর্ব দিকে হরষপুর ইউনিয়ন ও হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর উপজেলার আদাঐর ইউনিয়ন , উত্তর দিকে হবিগঞ্জ জেলার মাধবপুর পৌরসভা ও মাধবপুর উপজেলার আন্দিউড়া ইউনিয়ন  এবং পশ্চিম দিকে রয়েছে নাসিরনগর উপজেলার হরিপুর ইউনিয়ন ও সরাইল উপজেলার শাহজাতপুর। গ্রামসমূহ কেনা তালতলা সেমড়া মেরাশানী শশই ইসলামপুর বীরপাশা ফতেপুর বারঘড়িয়া বিন্নিঘাট শ্রীনগর আলীনগর খাতাবাড়ী গাছতলা সাতবর্গ বুধন্তি ইউনিয়ন টি বিজয়নগর উপজেলার অন্তর্ভুক্ত অন্যতম…

  • একনজরে চম্পকনগর ইউনিয়ন

    চম্পকনগর ইউনিয়ন চম্পকনগর ইউনিয়ন টি বিজয়নগর উপজেলার অন্তর্ভুক্ত অন্যতম ৪নং ইউনিয়ন পরিষদ। এই ইউনিয়নের প্রশাসনিক সকল কার্যক্রম বিজয়নগর থানার অন্তর্ভুক্ত । এটি জাতীয় সংসদ এর ২৪৫ নং নির্বাচনী এলাকা ব্রাহ্মণবাড়িয়া ৩ আসনের অংশ বিশেষ। বিজয়নগর উপজেলার মধ্যবিন্দুতে চম্পকনগর ইউনিয়ন টি অবস্থিত। এই ইউনিয়নের উত্তর দিকে রয়েছে ইছাপুরা ইউনিয়ন , পূর্ব দিকে পাহাড়পুর ও বিষ্ণুপুর ইউনিয়ন , দক্ষিণ দিকে পত্তন ইউনিয়ন  এবং পশ্চিম দিকে রয়েছে পত্তন ইউনিয়ন ও চর ইসলামপুর ইউনিয়ন। গ্রামসমূহ সাটিরপাড়া পেটুয়াজুরী গেরারগাো রামচন্দ্রপুর ফতেপুর নুরপুর জামালপুর খোদেহাড়িয়া বাদেহাড়িয়া মাছিমপুর গোপালপুর সোনাবির্ষপাড়া

  • একনজরে ইছাপুরা ইউনিয়ন

    ইছাপুরা ইউনিয়ন ইছাপুরা ইউনিয়ন টি বিজয়নগর উপজেলার অন্তর্ভুক্ত অন্যতম ৩নং ইউনিয়ন পরিষদ। এই ইউনিয়নের প্রশাসনিক সকল কার্যক্রম বিজয়নগর থানার অন্তর্ভুক্ত । এটি জাতীয় সংসদ এর ২৪৫ নং নির্বাচনী এলাকা ব্রাহ্মণবাড়িয়া ৩ আসনের অংশ বিশেষ। বিজয়নগর উপজেলার মধ্যবিন্দুতে ইছাপুরা ইউনিয়ন টি অবস্থিত । এই ইউনিয়নের উত্তর দিকে রয়েছে চান্দুরা ইউনিয়ন, পূর্ব দিকে হরষপুর ইউনিয়ন ও পাহারপুর ইউনিয়ন, দক্ষিণ দিকে চম্পকনগর ইউনিয়ন  এবং পশ্চিম দিকে রয়েছে চর ইসলামপুর ইউনিয়ন। গ্রামসমূহ মির্জাপুর ফুলবাড়িয়া আড়িয়ল তুলাতলা যাদবপুর ধীতপুর ইছাপুরা কৈতারা ডালপা কুতুবপুর খাদুরাইল এই ইউনিয়ন টি বিজয়নগর উপজেলার অন্তর্ভুক্ত অন্যতম ৩নং ইউনিয়ন পরিষদ। এই ইউনিয়নের প্রশাসনিক সকল কার্যক্রম বিজয়নগর থানার অন্তর্ভুক্ত । এটি জাতীয় সংসদ এর ২৪৫ নং নির্বাচনী এলাকা ব্রাহ্মণবাড়িয়া ৩ আসনের অংশ…

  • একনজরে সিংগারবিল ইউনিয়ন

    সিংগারবিল ইউনিয়ন সিংগারবিল ইউনিয়ন টি বিজয়নগর উপজেলার অন্তর্ভুক্ত অন্যতম ৭নং ইউনিয়ন পরিষদ। এই ইউনিয়নের প্রশাসনিক সকল কার্যক্রম বিজয়নগর থানার অন্তর্ভুক্ত । এটি জাতীয় সংসদ এর ২৪৫ নং নির্বাচনী এলাকা ব্রাহ্মণবাড়িয়া ৩ আসনের অংশ বিশেষ। বিজয়নগর উপজেলার সর্ব-দক্ষিণ দিকে সিংগারবিল ইউনিয়ন টি অবস্থিত। এই ইউনিয়নের উত্তর দিকে রয়েছে বিষ্ণুপুর ইউনিয়ন ও পত্তন ইউনিয়ন, পশ্চিম দিকে পত্তন ইউনিয়ন ও ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর উপজেলার মাছিহাতা ইউনিয়ন, দক্ষিণ দিকে আখাউড়া উপজেলার আখাউড়া উত্তর ইউনিয়ন এবং পূর্ব দিকে রয়েছে ভারতের ত্রিপুরা প্রদেশ। গ্রামসমূহ সিঙ্গারবিল শিবনগর উথারিয়া পাড়া খিরাতলা কাশিনগর       শ্রীপুর নোয়াবাদী নলগড়িয়া কাঞ্চন পুর দৌলতবাড়ী মিরাশানী 

  • কবি আল মাহমুদ (১৯৩৬-২০১৯)

    কবি আল মাহমুদ (১৯৩৬-২০১৯) ❛আমার মায়ের সোনার নোলক হারিয়ে গেল শেষে হেথায় খুঁজি হোথায় খুঁজি সারা বাংলাদেশে।❜ খুব সম্ভবত এই লাইন দুটির মাধ্যমে আমাদের পরিচয় ঘটেছিল বাংলা সাহিত্যের আলোকিত নক্ষত্র কবি আল মাহমুদের সাথে।কবি আল মাহমুদ এক কিংবদন্তির নাম। তার অভূতপূর্ব সৃষ্টি বাংলা সাহিত্যকে সমৃদ্ধ করেছে বহুগুণে। তার পিতৃপ্রদত্ত নাম মীর আবদুস শুকুর আল মাহমুদ হলেও তিনি আল মাহমুদ নামেই অধিক পরিচিত।তিনি ১৯৩৬ সালের ১১ জুলাই ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার মৌড়াইল গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। পিতার নাম মীর আবদুর রব, মাতা রওশন আরা মীর। তার পিতা একজন সংবাদ কর্মী ছিলেন। সেই সুবাদে সাংবাদিকতার বিষয়টি তার পরিচয় অনেক আগে থেকেই। জন্ম ও শৈশবকাল কবি আল মাহমুদের শৈশব কেটেছে ব্রাহ্মণবাড়িয়ায়। গ্রামের মক্তবে ধর্মীয় শিক্ষার পাশাপাশি তিনি…

  • সরাইলের গ্রে-হাউন্ড কুকুরের ইতিহাস

    সরাইলের গ্রে-হাউন্ড কুকুরের ইতিহাস সরাইলের কুকুর দেশ বিদেশে যথেষ্ট সুনাম রয়েছে। দেশ বিদেশের অনেক শৌখিন লোক এই কুকুরের জাত সংগ্রহ করতে পাড়ি জমায় ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার সরাইলে। সেই সাথে বিভিন্ন দেশের প্রশাসন নিরাপত্তার কাজেও সরাইলের ঐতিহ্যবাহী গ্রে-হাউন্ড কুকুর ব্যাবহার করে থাকেন। গ্রে হাউন্ড কুকুরের বৈশিষ্ট্য : এই কুকুরের মুখ সাধারণত কুকুরের চেয়ে অনেকটাই লম্বা, পায়ের নখগুলো বড় বড়, দৃষ্টি শক্তি তীক্ষ্ণ, পা এবং লেজ অনেক লম্বা। এই কুকুর সাধারণ কুকুরের চেয়ে অনেক গুণ শক্তিশালী, অধিক ক্ষিপ্র, কষ্ট সহিষ্ণ। ক্ষিপ্রতার কারণে এদেরকে সাধারণ মানুষ, চোর অথবা ডাকাত একটু বেশি ভয় পাই। শিয়াল, বন বিড়াল এবং বাঘডাস শিকারে এরা খুব পারদর্শী। গ্রে-হাউন্ড কুকুরের ইতিহাস ইতিহাস থেকে জানা যায় যে বহুকাল আগে সরাইলের দেওয়ান…

  • উপজেলা এবং ইউনিয়ন সমূহ ব্রাহ্মণবাড়িয়া

    ব্রাহ্মণবাড়িয়া ৯ টি উপজেলা এবং ১০০ টি ইউনিয়ন রয়েছে। উপজেলা এবং ইউনিয়ন সমূহ দেখে নিন ব্রাহ্মণবাড়িয়া সদর বাসুদেব দক্ষিণ নাটাই সহিল পুর মাছিহাতা মজলিশ পুর তালশহর (পূর্ব) রামরাইল সাদেক পুর সুলতান পুর উত্তর নাটাই বুধল নবীনগর বড়িকান্দি বিদ্যাকুট বিটঘর ইব্রাহিমপুর জিনেদপুর কাইতলা (উত্তর) কাইতলা(দক্ষিণ) কৃষ্ণনগর লাউর ফতেপুর নাট ঘর নবীন নগর পশ্চিম নবীন নগর পূর্ব রসুল্লাবাদ রতন পুর ছলিম গঞ্জ বড়াইল বীরগাঁও সাতমোড়া শিবপুর শ্যামগ্রাম শ্রীরামপুর আশুগঞ্জ আড়াইসিধা চারতলা লালপুর পশ্চিম তালশহর শরীফ পুর দুর্গাপুর তারুউয়া আশুগঞ্জ আখাউড়া আখাউড়া দক্ষিণ ধরখার মনিয়ন্দ মগ্রা আখাউড়া উত্তর কসবা বৈদের বায়েক বিনাউটি গোপিনাথপুর কায়েমপুর কসবা পশ্চিম খাড়েরা কুটি মেহারী মূলগ্রাম বিজয়নগর বুধমত্নী চান্দুরা চর ইসলামপুর সিংগারবিল হরিষপুর পাহাড় পুর পত্তন ইছাপুর বিষ্ণপুর চম্মকনগর…

error: Content is protected !!