বিনোদন

ব্রাহ্মণবাড়িয়া অবস্থিত পর্যটক স্থান, পার্ক, বিনোদন মূলক অনুষ্ঠান, বিনোদন মূলক প্রতিষ্ঠান এবং সংগঠন ইত্যাদি বিষয় গুলো

  • আঞ্চলিক ভাষায় কিছু মজার প্রবাদ ও প্রবচন

    আঞ্চলিক মজার কিছু প্রবাদ ও প্রবচন! ব্রাহ্মণবাড়িয়া আঞ্চলিক ভাষায় গভীর অর্থবোধক কিছু প্রবাদ বাক্য ও প্রবচন। কিছু কিছু প্রবাদ পড়তে বা শুনতে নেতিবাচক মনে হলেও এসব প্রবাদে অনেক তাৎপর্য লুকিয়ে আছে। একবার করে পড়ে আসেন। সত্যিই একটি অন্য রকম অনুভূতি সৃষ্টি হবে। আশা করি সবার ভাল লাগবে! জান চলে না বাড়ি বাউনবাইড়া। বাড়ির গরু গাডার ঘাস খায় না। কম পানির মাছ বেশি পানিতে পড়লে ছডর ফডর করে। বাপ দাদার নাম নাই, চান মোল্লার বিয়াই। ঠাডা পইড়া বগা মরছে, ফকিরের কেরামতি বাড়ছে। আজাইরা থাইকা, গজাইরা গীত গা। আমও গেছে, লগে ছালাও গেছে। হায়ের নামে লেশ নাই, দেওর চৌদ্দ জন। লাইগ্যা থাকলে ম্যাইগা খাওয়া লাগে না। ভাত ছিটাইলে কাওয়ার অভাব হয় না।…

  • পর্যটক স্থান সমূহ ব্রাহ্মণবাড়িয়া

    সংস্কৃতির রাজধানী এই ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় অসংখ্য পর্যটক স্থান সমূহ এক নজরে দেখে নিন দেখে নিন কেল্লাপাথর ব্রাহ্মণবাড়িয়া থেকে সিএনজি দিয়ে কসবা লক্ষীপুর শহীদ সমাধীস্থল কসবা উপজেলা থেকে ৩ কিলোমিটার উত্তর পূর্ব দিক গোপিনাথপুর ইউনিয়নের লক্ষীপুর গ্রাম কেল্লাহ শাহ মাজার আখাউড়া রেলস্টেশন থেকে ৫ মিনিটের পথ হরমপুর উলচাপাড়া মসজিদ ব্রাহ্মণবাড়িয়া সিএনজি দিয়ে যাওয়া যায় নাটঘর মন্দির গোকর্ণ ঘাট থেকে নদী এবং সড়কপথে যাওয়া যায় বিদ্যাকুট সতিদাহ মন্দির নবীন নগর থেকে রিক্সা মটরসাইকেল করে যাওয়া যায় কচুয়া মাজার নাছির নগর অথবা ভৈরব থেকে চাতলপাড় বাজার জয় কুমার জমিদার বাড়ি বুরিশ্বর ইউনিয়ন থেকে যে কোন ভাবে যাওয়া যায় হাতিরপুল ব্রাহ্মণবাড়িয়া বিশ্বরোড থেকে সিএনজি দিয়ে যাওয়া যায় আরিফাইল মসজিদ উপজেলা চত্বর থেকে রিক্সা বা পায়ে…

error: Content is protected !!